সোশ্যাল মিডিয়া ৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০৬:০১

পরিবর্তনে শরিক হওয়ার আহ্বান সহকারী পুলিশ সুপারের

ডেস্ক রিপোর্ট ।।

সম্প্রতি চারপাশে ঘটে চলা সব ছোট ছোট অনিয়মের বিরুদ্ধে জনগণকে সচেতন করার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার মঈনুল ইসলাম সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। সেখানে তিনি জনসাধারণকে চারপাশে ঘটে চলা সব ধরণের ছোট ছোট অনিয়ম ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য আহ্বান জানান। তিনি তার স্ট্যাটাসটির মাধ্যমে পরিবর্তনে শরিক হয়ে সুন্দর সমাজ গড়ার জন্য সবাইকে এগিয়ে আসার কথা বলেন। আমাদের কাগজের পাঠকদের জন্য তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো :

"জাতি হিসেবে আমরা বডড বেহায়া..... আসুন একটু পরিবর্তনে শরিক হই।

কখনো কি রাস্তায় বসা হকারকে চলে যেতে বলেছেন? কখনো কি অবৈধ পার্কিং এ রাখা গাড়ির চালককে ডেকে বকা দিয়েছেন? কখনো কি ফুটওভার ব্রিজে ওঠার জন্য জনসাধারণকে অনুরোধ করেছেন?কখনো খাবার টেবিলে পরিবারের সবাইকে নিয়ে ট্রাফিক আইন মেনে চলার কথা বলেছেন?

আপনি না দেশপ্রেমিক, আপনি আপনার জীবনের থেকে বেশি ভালবাসেন এ দেশকে,জাতির জনককে????

দেশপ্রেম, ভালবাসা শুধু কি টেলিভিশনের পর্দায়,সংবাদপত্রের কলামে, চায়ের দোকানে, বাসের আড্ডায় সীমাবদ্ধ থাকবে নাকি বাসতবায়নের জন্য আমরা এগিয়ে আসাবো?

আমি গুলশান ট্রাফিক জোন যোগদান করি ২৭-০৩-১৯ তারিখে। ফুটওভার ব্রিজে জনসাধারণের চলাচল উপযোগী করা চেষ্টা করে যাচ্ছি সেই প্রথম থেকে। আমার কাছে মনে হয়েছিল আমি যখন সবাইকে ফুটপাত এবং ফুটওভার ব্রিজে ওটার কথা বলবো সবার আগে ফুটপাতে জনগণের চলাচলের উপযোগী করে তুলতে হবে সেই থেকে আমাদের অভিযান শুরু। সকল সিনিয়র স্যারদের সহযোগিতায় এ অভিযান এখনও চলমান।গুলশান ১ এ ডিসিসি মার্কেট,গুলশান ২ এ কাঁচাবাজারে গলি,কাকলীর ফুটপাত,তিতুমীর কলেজ রোড,ইসিবি সহ সবজায়গাতে সপ্তাহে একবার করে এ অভিযান পরিচালনা করছিএবং কাউন্সিল ও করছি কিন্তু সমাধান খুব ই সামান্য।

তাই আজ থেকে নতুন পদ্ধতি চালু করেছি যেহেতু ফুটপাতে খাবারের দোকানের পরিমান বেশি তাই দোকানের খাবার অসহায় মানুষের মাঝে বিতরণ করে দেবো আর ফটপাতে রাখা মটরসাইকেলের হেলমেট সংগ্রহ করে রাস্তায় ঝুলিয়ে রাখাব। কিন্তু সমাধানের জন্য আমাদের সাবাই কে এগিয়ে আসতে হবে।

দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, আসুন চিন্তা, মননশীলতায় নিজেদের এগিয়ে নেই।"