সোশ্যাল মিডিয়া ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০৪:১৪

এবার হিরো আলমকে কটাক্ষ করলেন বিতর্কিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন

ভারতে নির্বাসিত বাংলাদেশী লেখিকা যিনি প্রথাবিরোধী লেখা লিখে পেয়েছেন শাখারভ পুরষ্কার, সেই তাসলিমা নাসরিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও ইউটিউবে আলোচিত হিরো আলমকে কটাক্ষ করে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এমন কি দেশের মিডিয়াগুলোও অযথা দেশের হিরো আলমকে নিয়ে মেতে উঠেছে বলেও অভিযোগ করেন এই বিতর্কিত লেখিকা। এছাড়া বাংলাদেশের রাজনীতিকেও একহাত নিয়েছেন তিনি। এদেশের রাজনীতিকে ক্লাউন বা ভাঁড়ের সাথেও তুলনা করেছেন। তিনি ইউটিউবে হিরো আলমের যে ভিডিওগুলো রয়েছে তা অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ, হাস্যকর এবং বিরক্তিকর জিনিস বলে স্ট্যাটাসে উল্লেখ করেছেন। নিজের ভ্যারিফায়েড ফেসবুক পেজে পাঠকদের জন্য তাসলিমা নাসরিনের স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলোঃ

‘বাংলাদেশের মিডিয়াগুলো হিরো আলম নিয়ে পড়েছে। পাগলের মতো তার সাক্ষাৎকার নিচ্ছে সবাই। বাজারের জনপ্রিয় গানের সঙ্গে লিপ মিলিয়ে ভাড়া করা 'অভিনেত্রী'র সঙ্গে তার যে নাচানাচির ভিডিও ইউটিউবে আছে, সেগুলো অত্যন্ত কুরুচিপূর্ণ, হাস্যকর এবং বিরক্তিকর জিনিস। সেগুলোর দর্শক বাংলাদেশের লক্ষ লক্ষ লোক। মানুষের ''ভালোবাসা'' পেয়ে হিরো আলম এখন ভোটে দাঁড়াচ্ছেন। একসময় মন্ত্রী হবেন। হয়তো প্রধানমন্ত্রীও হবেন। আসলে হিরো আলম বাংলাদেশের মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য উপযুক্ত লোক। দেশটাও হিরো আলমের উপযুক্ত হয়ে উঠেছে এতদিনে।

গরিব থেকে ধনী হলে, বা স্ট্রাগল করে বড় হলে বা সোজা সরল হলেই কি ভোটে দাঁড়ানোর যোগ্য হয় কেউ? লোকে বলে হয়। দূর্নীতিগ্রস্ত আর কুটিল জটিল রাজনীতিক দেখতে দেখতে মানুষ এখন সাদাসিধে কাউকে দেখলেই তাকে দেশ শাসনের ভার দিতে চায়। সাদাসিধে আর সৎ হলেই যে ভালো রাজনীতিক হওয়া সম্ভব তা তো নয়। রাজনীতির জগতটাকে একটা সার্কাস বানিয়ে ফেলেছে দেশটা। বাংলাদেশের সংসদে তো কম ক্লাউন নেই। হিরো আলম নামে নতুন এক ক্লাউনের নিশ্চয়ই ওখানে জায়গা হবে।’