অর্থ ও বাণিজ্য ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০১:৩০

দাম বাড়ায় খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি করছে টিসিবি

ডেস্ক রিপোর্ট ।।

মাত্র কিছুদিন আগে পেঁয়াজ রপ্তানির ক্ষেত্রে মূল্য বাড়িয়েছে ভারত। তবে তা বাংলাদেশে আসতে আরো অন্তত এক সপ্তাহ লাগবে। কিন্তু সেই মূল্যবৃদ্ধির খবরেই দেশের পাইকারি বাজারে পেঁয়াজের মূল্য প্রচুর বেড়ে গেছে। সেই দ্রব্যমূল্য কিছুটা হলেও জনগণের ক্রয় সীমার মধ্যে রাখতে শুরু হয়েছে খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রির কার্যক্রম। এছাড়াও, সংকট কাটাতে তুরস্ক, মিসর ও পাকিস্তানসহ বেশ কয়েকটি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানির খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সম্প্রতি রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, টিসিবির উদ্যেগে শুরু হয়েছে স্বল্প মূল্যে খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি। কিন্তু টিসিবির এসব ভ্রাম্যমাণ পেঁয়াজের দোকানগুলোতে চোখে পড়েনি ক্রেতাদের ভিড়।

এ বিষয়ে টিসিবির একজন বিক্রেতা জানান, স্বল্প মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করলেও ক্রেতাদের নেই তেমন ভিড়। আশানুরূপ ক্রেতা না পাওয়ায় কিছুটা হতাশ তারা। তবে বিষয়টি সম্পর্কে সাধারণ ক্রেতারা অবগত হলে তারা ঠিকই টিসিবির এসব বিক্রয় কেন্দ্র থেকে পেঁয়াজ কিনবে বলেই তাদের ধারণা।

প্রসঙ্গত, পেঁয়াজের ন্যূনতম রপ্তানিমূল্য (এমইপি) একলাফে টনপ্রতি ৮৫০ মার্কিন ডলার নির্ধারণ করেছে ভারত সরকার। রপ্তানি নিরুৎসাহ করে নিজেদের অভ্যন্তরীণ বাজার স্থিতিশীল রাখতে গত শুক্রবার এই আদেশ দেয় ভারতের বৈদেশিক বাণিজ্য শাখা। এরই মধ্যে সেটি কার্যকর হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে গতকাল শনিবার থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে ভারতীয় পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ রয়েছে। আর চাঁপাইনবাবগঞ্জের সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আসা কমে গেছে।

নতুন দরের পেঁয়াজের ঋণপত্র খুলে স্থলবন্দর দিয়ে দেশে আসতে সময়লাগবে অন্তত এক সপ্তাহ। কিন্তু তার আগেই বাজারে বাড়তি দামে বিক্রি শুরু হয়েছে পেঁয়াজ।