অপরাধ ও দুর্নীতি ১৪ জুলাই, ২০২০

সাহেদের প্রতারণামূলক কাজের অন্যতম সহযোগী মাসুদ গ্রেফতার

ডেস্ক রিপোর্টঃ
রিজেন্ট হাসপাাতলের চেয়ারম্যান মো. সাহেদের বিভিন্ন প্রতারণামূলক কাজের অন্যতম সহযোগী মাসুদ পারভেজকে গাজীপুর থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

আজ সন্ধ্যায় তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব সদর দফতরের মিডিয়া শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ।

মাসুদ পারভেজ রিজেন্ট গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) এবং রিজেন্ট হাসপাতালের বিরুদ্ধে র‌্যাবের দায়ের করা মামলার ২ নম্বর আসামি। রিজেন্ট হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযানের পর থেকে তিনিও পলাতক ছিলেন।

করোনা পরীক্ষা ও চিকিৎসায় অনিয়ম-প্রতারণার বিভিন্ন অভিযোগ উঠে আসে দেশের প্রথম সারির একটি গণমাধ্যমের অনুসন্ধানে। বিভিন্ন অভিযোগ জমা পড়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরেও। ৬ জুলাই হাসপাতালটিতে অভিযান চালায় র‌্যাব। অভিযানে বিভিন্ন অনিয়ম-প্রতারণার প্রমাণ উঠে আসে।

র‌্যাব জানায়, বাসায় গিয়ে করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহের অনুমতি না থাকলেও তারা সে কাজটি করত। আবার হাসপাতালে ভর্তি রোগীর ক্ষেত্রেও সরকারি ব্যবস্থাপনায় করোনা পরীক্ষা করা হলেও তারা এর জন্য টাকা নিত। রিজেন্ট হাসপাতাল সরকারিভাবে কোভিড রোগীদের চিকিৎসা দেওয়ার জন্য অধিদফতরের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলেও বিপুল অঙ্কের টাকা নেওয়া হয়েছে রোগীদের কাছ থেকে।

পরে স্বাস্থ্য অধিদফতর রিজেন্ট হাসপাতালের সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়ার আদেশ দেয়। এর মধ্যে র‌্যাব রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদসহ ১৭ জনের নামে মামলা দায়ের করে। অভিযানের দিনই আটক হয়েছিলেন আট জন। পরে সাহেদের ঘনিষ্ঠ তারেক শিবলীকেও রাজধানীর নাখালপাড়া এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তবে সাহেদসহ বাকিরা পলাতক আছেন। এর মধ্যে মাসুদকে গ্রেফতার করা হলো গাজীপুর থেকে।