শিক্ষা ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০৫:২৮

বিদ্যালয়ের দরজা ভেঙে ১১টি ল্যাপটপ চুরি

ডেস্ক রিপোর্ট

পঞ্চগড়ে বিদ্যালয়ের ল্যাবের তালার উপরের পাতি কেটে একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে একটি রাউটারসহ ১১টি ল্যাপটপ চুরির ঘটনা ঘটেছে।

শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দিনগত রাতে পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের শেখেরহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব থেকে এ চুরির ঘটনাটি ঘটে।

চুরি হওয়া ল্যাপটপগুলোর মূল্য প্রায় সাড়ে ৮ লাখ টাকা বলে জানিয়েছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের দেওয়া তথ্য মতে জানা যায়, চোর চক্র দরজার তালা না ভেঙে বৈদ্যুতিক শক্তি দিয়ে তালার উপরের পাতি কেটে ল্যাব কক্ষে প্রবেশ করে। এসময় তারা একটি রাউটারসহ ১১টি ল্যাপটপ নিয়ে পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন পঞ্চগড় সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম এবং পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) জামাল হোসেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ, বিদ্যালয়ে নৈশপ্রহরী থাকলেও দায়িত্বে অবহেলার কারণেই এমনটা হয়েছে। অধিকাংশ সময়ই রাত হলে নৈশপ্রহরী বিদ্যালয়ে থাকেন না।

এ অভিযোগ অস্বীকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মতিয়ার রহমান বলেন, নৈশপ্রহরী থাকে না এ কথা সঠিক নয়। কারণ এর আগেতো এমন কিছু ঘটেনি।

নৈশপ্রহরী সাইফুল ইসলাম বাংলানিউজকে বলেন, রাত ১২টা পর্যন্ত আমি পাহারায় ছিলাম, এরপর ঘুমাতে যাই। হয়তো আমি ঘুমিয়ে থাকার সুযোগ কাজে লাগিয়েছে চোর চক্র। এদিকে আমি সকালে বিদ্যালয়ের ল্যাম্প বন্ধ করতে গিয়ে ল্যাবের দরজা খোলা দেখি এবং ভিতরে গিয়ে দেখি ল্যাবে কোনো ল্যাপটপ নেই। পরে আমি শিক্ষকদের বিষয়টি জানায়।

পঞ্চগড় সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি, তদন্ত) জামাল হোসেন জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শাহীন আকতার বলেন, ওই বিদ্যালয়ের ১১টি ল্যাপটপ চুরি হয়েছে এমন খবর পেয়েছি। প্রধান শিক্ষক ও নৈশপ্রহরী এর দায় এড়াতে পারেন না। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে।