কৃষি ১১ জানুয়ারি, ২০২১ ১১:৩৪

বিদেশি কুলে স্বপ্ন দেখছে নাজমুল

নিজস্ব প্রতিবেদক

মৌসুমি ফল হিসেবে কুল খুব জনপ্রিয়। বিভিন্ন খনিজ দ্রব্য ও ভিটামিনের উৎস এই কুল দিয়ে তৈরি হয় আচার, চাটনি। তাই চাষিদের মাঝে দিন দিন কদর বাড়ছে এই মৌসুমি ফলটির।

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার মাহিলাড়া গ্রামের কুল চাষি নাজমুল সরদার বিদেশি জাতের কুল চাষ করে সফলতা পেয়েছেন। নাজমুল জানান, তার বাগানের কুল কিছুদিনের মধ্যেই বাজারজাত করা যাবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

তিনি আরো জানান, কৃষিকাজের প্রতি তার আগ্রহটা আগ থেকেই। যে কারণে তিনি বিগত সময়ে পানের বরজ, বোরো ধান ও মাছ চাষ করে আসছিলেন। এর ধারাবাহিকতায় কুল চাষের প্রতি আগ্রহ সৃষ্টি হওয়ায় বগুড়া জেলা থেকে পাঁচশ’ কাশ্মীরি কুলের চারা সংগ্রহ করেন তিনি। যা তার বিলের মধ্যে মাছের ঘেরের দুই পাশে রোপণ করেন। সঠিক পরিচর্যা করায় চারা রোপণের সাত মাসের মধ্যেই প্রত্যেকটি কুল গাছ এখন কাশ্মীরি কুলে পরিপূর্ণ। চারা রোপণ থেকে শুরু করে তার লক্ষাধিক টাকা খরচ হয়েছে। তবে প্রথম বছরেই গাছে যে পরিমাণ কুলের ফলন হয়েছে এবং কলমের চারার বিক্রির যে চাহিদা তৈরি হয়েছে তাতে খরচ বাদ দিয়ে এবছরই লাভবান হতে পারবেন বলেও মনে করছেন তিনি।

মাহিলাড়া ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান সৈকত গুহ পিকলু জানান, নাজমুল মাহিলাড়া ইউনিয়নের তালিকাভুক্ত একজন আদর্শ কৃষক। শুধু চাকরির পেছনে না ছুটে কৃষি কাজ করেও যে লাভবান হওয়া যায় তার জলন্ত উদাহরণ কৃষক নাজমুল।

জেলা কৃষি কার্যালয়ের সঠিক পরামর্শ নিয়ে কৃষক নাজমুল কুল চাষ করায় এখন স্বাবলম্বী হওয়া পথে বলে দাবি করেছেন গৌরনদী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. মামুনুর রহমান।