সোশ্যাল মিডিয়া ৩১ আগস্ট, ২০১৯ ০৩:২৭

রানুর অর্ধকোটির ফ্ল্যাট ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়

রানাঘাটের রেলস্টেশনে গান গাওয়া রানু মণ্ডলকে ঘিরে বেশ কিছুদিন যাবৎ ঝড় উঠেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেই ঝড় যেন থামছেই না। আর একের পর এক ঘটনা প্রবাহ ও বিতর্ক যেন প্রতিনিয়ত শক্তি সঞ্চার করে চলেছে সেই ঝড়ের।

সম্প্রতি তাঁকে দিয়ে নিজের পরবর্তী ছবি ‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হীর’-এর ‘তেরি মেরি কহানি’ গানটি গাইয়ে নিয়েছিলেন বলিউড গায়ক হিমেশ রেশমিয়া। সেই গানও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছিল।

এই গান ভাইরাল হওয়ার পর একটি খবর ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন প্ল্যাটফর্মে। সেখানে বলা হয়, এই গান গাওয়ার জন্য রানু মণ্ডলকে ছয়-সাত লক্ষ টাকা দিতে চেয়েছিলেন হিমেশ রেশমিয়া। কিন্তু এই খবরের কোনও ভিত্তি নেই বলে জানিয়েছেন অতীন্দ্র চক্রবর্তী। অতীন্দ্রই রানুর প্রতিভাকে সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মের  মাধ্যমে রানাঘাট স্টেশন থেকে পৌঁছে দিয়েছেন বিশ্বের দরবারে। তাঁর মাধ্যমেই রানুর সঙ্গে যোগাযোগ করছেন হিমেশ রেশমিয়া থেকে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা।

বর্তমানে অতীন্দ্রর সঙ্গে রানু রয়েছেন মুম্বইয়ে। এ বিষয়ে অতীন্দ্র বলেন, গান গাওয়ানোর জন্য হিমেশ রানুকে টাকা দিয়েছেন— এ খবর সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন।

এছাড়াও তিনি আরও বলেন, হিমেশ রেশমিয়ার মতো এক জন গায়ক রানুকে বলিউড ছবিতে প্লেব্যাক করার সুযোগ দিয়েছেন। নিজের প্রতিভাকে তুলে ধরার এত বড় একটা প্ল্যাটফর্ম পেল রানুদি। এটাই সব থেকে বড় কথা। টাকা পয়সার প্রসঙ্গ তো এখানে আসেই না।

শুধু এতটুকুতেই থেমে নেই সোশ্যাল মিডিয়া। গত কাল থেকে সর্বভারতীয় বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ভাসছে আরেকটি খবর। সেখানে বলা হচ্ছে, বলিউড স্টার সলমন খান তাঁর পরবর্তী ছবি ‘দাবাং-৩’-এর একটি গান গাওয়াবেন রানুকে দিয়ে। কিন্তু সলমন খানের তরফে এখনও পর্যন্ত এ ধরনের কোনও প্রস্তাব আসেনি বলে বুধবার বিকাল পর্যন্ত নিশ্চিত করেছেন অতীন্দ্র।

এ ছাড়াও সলমন খান রানু মণ্ডলকে ৫৫ লক্ষ টাকার ফ্ল্যাট দিচ্ছেন বলে যে খবর ছড়িয়ে পড়েছে চারদিকে তাতেও বিরক্ত তিনি।

এ বিষয়ে অতীন্দ্র বলেছেন, সলমন খানের ফ্ল্যাট দেওয়ার খবরটি সম্পূর্ণ গুজব। এ বিষয়ে বাজারে ছড়িয়ে গুজবকে ব্যঙ্গ করে অতীন্দ্র বলেছেন, রানুদির পকেটে এখনও পাঁচ টাকা নেই। আর লোকে মজে আছে ৫৫ লাখের গল্পে।