অর্থ ও বাণিজ্য ৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ০৩:৩৫

মাওয়ায় বসেছে মাছের মেলা

ডেস্ক রিপোর্ট

বড় বড় মাছের যেন মেলা বসছে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া মৎস্য আড়তে। পদ্মাতীরের আড়ৎটিতে সপ্তাহের ব্যবধানে মাছের দাম কেজিপ্রতি কমেছে ২০ টাকা থেকে ১০০ টাকা পর্যন্ত। তবে পদ্মার বড় ইলিশ ও পাঙ্গাসসহ কিছু মাছের দাম বেড়েছে।

কনকনে শীতেও ভোরেই জমজমাট থাকে মাওয়া মৎস্য আড়ত। বড় বড় ইলিশের সঙ্গে বোয়াল, আইড় ও পাঙ্গাশের পসরা চোখে লাগার মতো। এছাড়াও হরেক রকম তাজা মাছে ভরে যায় বাজার।

পুরান ঢাকার রহিমা বেগম জানান, তিনি সংবাদে ইলিশের হাটের খবর শুনে মাছ কিনতে আসেন। এসে দেখেন এলাহি কাণ্ড। পাইকারি দামে তাজা ইলিশ, পাঙ্গাশসহ নানা রকমের মাছ কিনেছেন।

ক্রেতা বিক্রেতা দিন দিন বেড়েই চলেছে মৎস্য আড়তে। দেশ সেরা ইলিশের হাটটির আধুনিকায়ন দরকার বলে দাবি জানিয়ে মাওয়া মৎস্য আড়তের সভাপতি ছানা রঞ্জন দাস বলেন, হাটের ২৯টি আরৎ আর ১৫০ ক্রেতার মাধ্যমে আড়াই ঘণ্টার এই আড়তে প্রতিদিন কোটি টাকার মাছ বেচাকেনা হয়।

মাওয়া মৎস্য আড়তে প্রতি কেজি মাছের দাম- বড় ইলিশ ১০০০-১১০০ টাকা, মাঝারি ইলিশ ৬০০-৭০০ টাকা, নতুন ছোট ইলিশ ৩০০-৪০০ টাকা, কৈ ১৩০- ১৪০ টাকা, শিং ২২০- ২৬০ টাকা, চিতল ৩০০-৬৫০ টাকা, তাজা রুই ২৮০-৩০০ টাকা, চিংড়ি ৫৫০-৬০০ টাকা, পাবদা ২২০-৩৫০ টাকা, আইড় ৫০০-১২০০ টাকা, বোয়াল ৭০০-১০০০ টাকা, সরপুঁটি ১২০-১৩০ টাকা, নলা ১৩০-১৪০ টাকা, পোয়া ১৮০-৩৫০ টাকা, পাঙ্গাশ ১২০-১৪০ টাকা, নদীর পাঙ্গাশ ৯৫০-১০০০ টাকা, কাতল ১২০-১৪০ টাকা, তেলাপিয়া ১০০-১২০টাকা ও টেংরা ৩০০-৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।