অর্থ ও বাণিজ্য ৪ ডিসেম্বর, ২০২০ ১০:০৯

মুলা চাষিদের মাথায় হাত

নীলফামারী প্রতিনিধি

৬ মণ মুলা বেচে কিনতে পারেন না এক কেজি গরুর মাংস। এমন অবস্থা নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার মুলা চাষিদের। মাত্র ২ টাকা কেজিতে বিক্রী হচ্ছে মুলা বিক্রি হচ্ছে ফলে অস্বস্তিতে ভুগছেন বিক্রেতারা।

নীলফামারীর সবচেয়ে বড় কাঁচামালের বাজারে সরেজমিনে দেখা যায়, প্রতি কেজি মুলা বিক্রি হচ্ছে মাত্র ২ টাকায়। খুচরা দোকানিরা এসব কিনে বাজারে ৪-৫ টাকায় বিক্রি করছেন।

কৃষক আবেদ আলী বলেন, পাইকারি বাজারে মুলা এনে বিক্রি হচ্ছে না। প্রায় সোয়া ৬ মণ মুলা বেচে ৫০০ টাকায় এক কেজি গরুর মাংস কিনতে হচ্ছে।

উপজেলার লক্ষণপুর এলাকা থেকে মুলা বিক্রি করতে আসা রবিউল বলেন, ৪ হাজার টাকা ব্যয়ে ১৬ শতক জমিতে মুলার চাষ করেছি। আজ প্রথম হাটে মুলা বিক্রি করতে এসেছি। বাজারে মুলা বিক্রি করতে এসে বিপাকে পড়েছি। ক্রেতা না থাকায় ২ টাকা কেজিতে মুলা বিক্রি করেছি।

ক্ক

বাজারে আলু, বেগুন, পেঁয়াজের চাহিদা থাকলেও মুলার ক্রেতা নেই বললেই চলে। করোনাকালে ক্রেতার অভাবে প্রতি কেজি মুলা ২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ফলে হতাশায় ভুগছেন কৃষকরা।

সৈয়দপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শাহিনা বেগম বলেন, বোতলাগাড়ীতে এবার প্রচুর শাক-সবজি উৎপাদন হচ্ছে। ফলে শাক-সবজির দাম কমে গেছে।