সোশ্যাল মিডিয়া ২৩ আগস্ট, ২০১৯ ০৪:৩০

২১শে আগস্টের হামলা একটি পরিকল্পিত সন্ত্রাস: সজীব ওয়াজেদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক।।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র তথ্য-প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভ্যারিফায়েড পেজ থেকে একুশে আগস্ট সংক্রান্ত একটি স্ট্যাটাসে তৎকালীন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে থাকা রাষ্ট্রযন্ত্র ব্যাবহার করে কিভাবে এ পরিকল্পিত সন্ত্রাস চালানো হয়েছে, সেটি তুলে ধরেন।

সেই সাথে ৭১ টেলিভিশনে প্রচারিত সশস্ত্র বাহিনীর গোয়েন্দা সংস্থা ডিজিএফআই’এর তৎকালীন মহাপরিচালক মেজর জেনারেল সাদেক হাসান রুমির স্বাক্ষী হিসেবে যে জবানবন্দি দিয়েছেন। তা তিনি তার স্ট্যাটাসের সাথে সংযুক্ত ভিডিও আকারে দিয়েছেন।  যেই জবানবন্দীতে তিনি বলেছেন, গ্রেনেড হামলার সাথে সাথেই তিনি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ঘটনাটি জানাতে চেয়েছিলেন, কিন্তু পারেন নি। পরবর্তিতে তিনি বুঝতে পারেন সম্পূর্ন ঘটনা সম্পর্কে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী  বেগম খালেদা জিয়া অবগত ছিলেন। এমন কি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী তার এই তদন্তে আগ্রহ দেখে বিরক্তিও প্রকাশ করেন।

উল্লেখ্য, মেজর জেনারেল সাদেক হাসান রুমি ২০০২-২০০৭ সাল পর্যন্ত ডিজিএফআই’এর মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার সময়ই ২০০৪ সালের ২১শে আগস্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার ঘটনা ঘটে। তিনি ঘটনায় জড়িত বিএনপি নেতা আবদুস সালাম পিন্টুর ভাই তাজউদ্দিনকে খুজে বের করার নির্দেশ দেন ডিজিএফআই’এর কর্মকর্তা  লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাইফুল ইসলাম জোয়ারদারকে। কিন্তু পরবর্তিতে তদন্তে দেখা যায় যে কর্নেল সাইফুলই তাজউদ্দিন ও হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামীর প্রতিষ্ঠাতা মাওলানা আবদুস সালামকে গুলশানের ডিজিএফআই’এর সেইফ হাউজে আশ্রয় দেন। পরবর্তিতে লেফটেন্যান্ট কর্নেল সাইফুল তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরের সহযোগিতায় তাদেরকে পাকিস্তান পাঠিয়ে দেন।